অতিরিক্ত শিক্ষার্থী ভর্তি, দুই বিশ্ববিদ্যালয়কে ২০ লাখ টাকা জরিমানা

বাংলাদেশ বার কাউন্সিল ও বিশ্ববিদ্যারয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে আইন বিভাগে প্রতি সেমিস্টারে ৫০ জনের বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি করায় দুটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে ২০ লাখ টাকা জরিমানা করেছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

প্রত্যেক বিশ্ববিদ্যালয়কে ১০ লাখ টাকা করে বারডেম হাসপাতালের লিভার ট্রান্সপ্লান্ট ইউনিটে জমা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে আইনজীবী হিসেবে অন্তর্ভুক্তির জন্য বার কাউন্সিলের পরীক্ষায় ওই দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিবন্ধন কার্ড প্রদান ও ফরম পূরণ করার সুযোগ দিতে হাইকোর্টের নির্দেশ বহাল রাখা হয়েছে।

যে দুটি বিশ্ববিদ্যালয়কে জরিমানা করা হয়েছে তা হলো-ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগ আজ বুধবার এ আদেশ দেন। হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে বার কাউন্সিলের করা এক আবেদনের ওপর শুনানি শেষে এ আদেশ দেওয়া হয়। বার কাউন্সিলের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট এ ওয়াই মশিউজ্জামান। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় দুটির পক্ষে আইনজীবী ছিলেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ ও অ্যাডভোকেট এএম আমিন উদ্দিন।

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে অতিরিক্ত শিক্ষার্থী ভর্তি করার অভিযোগে ১১টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষার্থীদের এনরোল্ডমেন্ট (আইনজীবী হিসেবে অন্তর্ভুক্তি) পরীক্ষায় নিবন্ধন কার্ড না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বার কাউন্সিল। এই সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্চ করে প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থী হাইকোর্টে রিট আবেদন করে। হাইকোর্ট রিট আবেদনকারীদের নিবন্ধন কার্ড দিতে বার কাউন্সিলকে নির্দেশ দেন। হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির আদালতে আবেদন করে বার কাউন্সিল। চেম্বার বিচারপতির আদালত বার কাউন্সিলের আবেদনের ওপর শুনানির জন্য আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন। এ অবস্থায় আজ আপিল বিভাগে শুনানি হয়।