রাষ্ট্রপতির মেয়ে হওয়ায় ছাড়তে হল কেবিন ক্রুর চাকরি!

ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের মেয়ে বাবার মতোই নিজের যোগ্যতা ও পরিশ্রম করে বাঁচার পক্ষে। তিনি বাবার পদবি পর্যন্ত ব্যবহার করেন না।

নিজের নামের জায়গায় শুধু লেখেন স্বাতী। দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সংস্থা এয়ার ইন্ডিয়ায় কেবিন ক্রুর কাজ করতেন তিনি। আকাশে ওড়া তার দৈনন্দিন কাজ ছিল। কিন্তু সেই স্বাতীই আর আকাশে উড়তে পারবেন না! নিরাপত্তার কারণে তাকে কেবিন ক্রুর চাকরি ছাড়তে হয়েছে।

জানা যায়, স্বাতীকে এয়ার ইন্ডিয়ার কেবিন ক্রুর পরিবর্তে গ্রাউন্ড ডিউটিতে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এয়ার ইন্ডিয়ার এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, প্রায় এক মাস হয়ে গেল স্বাতীকে কেবিন ক্রুর কাজ থেকে অব্যাহতি দিয়ে গ্রাউন্ড ডিউটিতে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। নিজের কাজে অবশ্য তুখোড় স্বাতী। কেবিন ক্রু থাকাকালীন নিয়মিত বোয়িং ৭৮৭ ও বোয়িং ৭৭৭ ফ্লাইটের উড়ান দক্ষ হাতে সামলেছেন। কিন্তু বর্তমানে তাকে এয়ার ইন্ডিয়ার ইন্টিগ্রেশন ডিপার্টমেন্টে কাজ করতে হচ্ছে।

২০০৭-এ ইন্ডিয়ান এয়ারলাইন্স ও এয়ার ইন্ডিয়া মিশে যাওয়ার পর থেকেই এই বিভাগটি শুরু হয়। মূলত বিদেশি ও দক্ষ মানবসম্পদ একত্রীকরণের দায়িত্ব রয়েছে এই বিভাগের উপর।

যে কারণে স্বাতীকে ছাড়তে হল কেবিন ক্রুর পদ?
এয়ার ইন্ডিয়ার ওই মুখপাত্র জানাচ্ছেন, রামনাথ কোবিন্দ যতদিন রাষ্ট্রপতি হননি, ততদিন তার মেয়ে কেবিন ক্রু হিসাবে কাজ করায় কোন অসুবিধা ছিল না। কিন্তু এখন স্বাতী ভারতের রাষ্ট্রপতির মেয়ে। প্রোটোকল অনুযায়ী তার সঙ্গে সর্বক্ষণ সশস্ত্র প্রহরীরা মজুত থাকেন। সেক্ষেত্রে স্বাতী কেবিন ক্রু থাকলে তার নিরাপত্তারক্ষীদের নিয়েই বিমানে উঠতে হবে। সেক্ষেত্রে বেশ কিছু আসন সংরক্ষিত রাখতে হবে। যাত্রীদের অসুবিধা হতে পারে ভেবেই স্বাতীকে এখন গ্রাউন্ড ডিউটিতে নিয়োগ করা হয়েছে। তবে এ ব্যাপারে স্বাতীর বক্তব্য জানা যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *